বৃদ্ধ এই ব্যক্তি কি আদৌ আমিতাভ বচ্চন!

এই লেখাটি 50 বার পঠিত

Amitabvভারতীয় এক সংবাদ মাধ্যমে বৃদ্ধ এক ব্যক্তির ছবিকে অমিতাভ বচ্চনের ছবি বলে প্রতিবেদন করেছে। পরে এই ছবিকে ঘিরেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। পাশাপাশি বলা হয় অমিতাভ বচ্চনের নতুন ফিল্মের জন্য এই লুক করা হয়েছে যা ফাঁস হয়ে গেছে। তবে ছবির ওই ব্যক্তি বলিউডের বিগ বস অমিতাভ বচ্চন নন। ইনি নাকি একজন আফগান উদ্বাস্তু।

আসলে এই ছবিটি “ঠগস অফ হিন্দোস্তান”-এর চরিত্রে অভিনয় করা অমিতাভ বচ্চনের নয়। এটি একজন সাধারণ মানুষের ছবি। পাকিস্তানে বাস করা এক আফগান রিফিউজির ছবি এটি। সেই ছবিকেই বিগ বি’র আসন্ন ছবির একটি ফটোগ্রাফি বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। পাশাপাশি তারা জানিয়েছে, বিগ বি’র এই ছবি ফাঁস হয়ে গেছে।

ওই সংবাদ মাধ্যমের বিরুদ্ধে আরও অভিযোগ করা হয় যে, তারা অমিতাভের আসন্ন ওই ফিল্মে অমিতাভের মেকআপ তার পোশাক তার স্টাইল এই সব নিয়েও আলোচনা করে ফেলেছে এই ছবিটি দেখিয়ে। যা কিনা একেবারেই সত্য নয় বলে দাবি করা হয়।

এই ছবিটি তোলেন স্টিভ ম্যাককারি। তিনি তার এই ছবিটি ২০১৮র ২৭ জানুয়ারি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেন। ফটোগ্রাফার ম্যাককারি তার ইনস্টাগ্রাম পোস্টে সেই ছবির ক্যাপশনে লেখেন, ‘এই পোট্রেটটি শাবুজের। এর বয়স ৬৮৷ ইনি পাকিস্তানে বসবাসকারী এক আফগান উদ্বাস্তু। বহু আফগানী কেবলমাত্র একটি নামই ব্যবহার করেন।’

১৯৮৪তে ম্যাককারি ‘আফগান গার্ল’ নামক আইকনিক ফটোগ্রাফি করে বিশ্বের দরবারে ব্যাপক খ্যাতি অর্জন করেন। সেই ফটোগ্রাফি জায়গা পায় ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক ম্যাগাজিনে।

ওই সংবাদ মাধ্যম নিউজটিকে বিশ্বাসযোগ্য করার জন্য ম্যাককারির এই ছবি দেখিয়ে বেশ কিছু উদ্ধৃতিও তুলে দেয় বলে অভিযোগ উঠেছে। যেমন মেকআপ আর্টিস্ট জানিয়েছেন- এমনভাবে মেকআপ দেওয়া হয়েছে যাতে অমিতাভ বচ্চনকে কোনোভাবেই চিনতে পারা যাচ্ছে না। বিতর্ক তৈরি হয়েছে এখানেই। ফেক বা নকল রিপোর্ট করা নিয়ে ওই সংবাদ মাধ্যমকে দুষছে বেশ কিছু আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম।

সূত্র : কলকাতা২৪x৭

Telecom Bangla

ঢাকা অফিসঃ ১৬২ পশ্চিম ধানমন্ডি, ঢাকা ফোন :০১৯১১-৩১৬৯৮৮
ই-মেইল:moretaza@gmail.com
যুক্তরাস্ট্র অফিস :৭১-২০, ৩৫ অ্যাভিনিউ, জ্যাকসন হাইটস, নিউইয়র্ক ১১৩৭২
মোবাইল: +১ (২১২) ২০৩-৯০১৩, +১ (২১২) ৪৭০-২৩০৩
ইমেইল: dutimoy@gmail.com
এডিটর ইন চিফ : মুজিবুর আর মাসুদ ইমেইল: muzibny@gmail.com
©সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত, টেলিকম বাংলা.কম, ২০১৪-২০১৬